আইন ও আদালত, রাজধানী

মিরপুরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে পুত্রবধুর পায়ুপথে নির্যাতন করে শ্বশুর শাশুড়ী

মিরপুরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে পুত্রবধুর পায়ুপথে নির্যাতন করে শ্বশুর শাশুড়ী।

<script data-ad-client=”ca-pub-2965186520548521″ async src=”https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js”></script>

বাংলাদেশ একাত্তর.কম/ প্রতিবেদক/আক্তার মাহমুদ:

মিরপুর শাহআলী থানাধীন নবাব বাগে এলাকায় যৌতুকের ৫ লাখ টাকা না পেয়ে পুত্রবধুর পায়ুপথে নির্যাতন চালায় শ্বশুর ছালেম উদ্দিন ও শাশুড়ী রিনা আক্তার। এ বিষয়ে শ্বশুর শাশুড়ীর লোকজনের বিরুদ্ধে কোর্টে একটি সিআর (নং ২৭৪) মামলা করেন। ভুক্তভোগী সুমাইয়া আক্তার সুপ্তি।

জানাগেছে বিয়ের আগে একই এলাকার ছলেম উদ্দিনের ছেলে সাব্বির কৌশলে তার এক বন্ধুর বাসায় কলেজ পড়ুয়া সুমাইয়াকে নিয়ে ধর্ষণ করে। গোপনে মোবাইলে সেই দৃশ্য ধারণ করে রাখে। বিষয়টি কাউকে জানালে ইন্টারনেটে ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দিতো সাব্বির। পরে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করতে তাকে। এতে সুমাইয়া অন্তঃসত্ত্বা হয়। মেয়ের পরিবার সাব্বিরের সাথে বিয়ে দিতে তার পরিবারের সাথে আলোচনায় বসেন। এতে ক্ষিপ্ত হন সাব্বিরের বাবা ছলেম উদ্দিন ও মাতা রিনা আক্তার। পরে থানা পুলিশের ভয়ে ছালেম উদ্দিন সুমাইয়ার পরিবারকে বলেন বাচ্চা নষ্ট করে দিলে তার ছেলের বৌ করে ঘরে নিবেন। ছলিম উদ্দিনের কথায় বিস্বাস করে শাহআলী থানা এলাকার জহুরাবাদ মাতৃসেবা নারসিং হোমে এসে গর্ভপাত ঘটান সুমাইয়া।

বিয়ের মাত্র তিনদিন না যেতেই শ্বশুর শ্বাশুড়ী সুমাইয়াকে বলে তোর বাপের বাড়ী থেকে ৫ লাখ টাকা যৌতুক আনবি। আনতে না পারলে আমার বাড়ী থেকে চলে যা। এবং বিয়ের ৩(তিনদিনে নির্যাতনের আঘাতে সুমাইয়ার শরীরের বিভিন্ন স্থান ফুটে ওঠে। বাংলা ছবিতে আমারা দেখেছি ডাইনি রিনা খান তার পত্রবধুকে কি ভয়ানক নির্যাতন ঘটায় কিন্তু বাস্তাবে সাব্বিরের মাতা রিনা আক্তার তার চেয়ে অধিক গুন বেশিই করেছে বায়ুপথে নির্যাতন করে। সুমাইয়া হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে এখন বাসায়।

Print Friendly, PDF & Email
Comments
Share

bangladesh ekattor

বাংলাদেশ একাত্তর.কম

Reply your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked*

20 − 9 =

বাংলাদেশ একাত্তর