জনদুর্ভোগ

বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রান যেন ওষ্ঠাগত

%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%b7%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4-%e0%a6%a7%e0%a7%8b%e0%a6%81%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a7%9f-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%a8-%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%a8

বাংলাদেশ একাত্তর.কম / সুমন হোসেন:

রাজধানীর মিরপুরে একটি ঔষধ কোম্পানির ফ্যাক্টরি থেকে নির্গত বিষাক্ত গ্যাস ও ধোঁয়ায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন ওই এলাকার ১০০ টি পরিবার। বেশ কয়েক বছর নির্গত বিষাক্ত ধোঁয়ায় স্থানীয়দের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। শ্বাসকষ্ট সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন অনেকে। স্বাভাবিক জীবন যাপন যেন দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে। বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রান যেন ওষ্ঠাগত।

ভুক্তভোগী স্থানীয় বাসিন্দা ডা: এবি এম আব্দুল হাকিম মিয়া এ অবস্থার প্রতিকার চেয়ে ২৭ তারিখ মঙ্গলবার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পরিবেশ অধিদপ্তরে লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন। তার অভিযোগ মিরপুর ৭ নম্বরে অবস্থিত ঔষধ উৎপন্নকারী প্রতিষ্ঠান রেনেটার বিরুদ্ধে।

লিখিত অভিযোগে রয়েছে স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে ১৯৯৪ সাল থেকে ঔষধ কোম্পানি রেনেটার ঠিক পশ্চিম পার্শ্বে একটি দোতলা বাড়িতে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছি। আমার বাসার অদূরে পূর্বপাশে ঔষধ কোম্পানি রেনেটার এক পাশের দেয়াল রয়েছে। ওই দেয়াল ঘেঁষে ইটের গাঁথুনীর উপর টিনের চালা দিয়ে দুটি ঘর আছে। বিগত তিন বছর ঐ ঘর দু’টোতে স্থাপিত মেশিন থেকে অনবরত বিষাক্ত গ্যাস ও ধোঁয়া বের হচ্ছে। এর মধ্যে কয়েক মাস ধরে নির্গত বিষাক্ত গ্যাস ও ধোঁয়ার পরিমাণ বেড়ে গেছে। এই গ্যাস ও ধোঁয়ায় আমার বাড়ী সহ আশ-পাশের এলাকা প্রতিনিয়ত কুয়াশার মত আচ্ছন্ন থাকে। আমার স্ত্রী রিনাল ফেইলিয়ার ও হৃদরোগে বেশ কয়েক বৎসর ধরে অসুস্থ। তার ডায়বেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ আছে। শ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গে নির্গত বিষাক্ত গ্যাস ও ধোঁয়া নিতে নিতে অধিকাংশ সময় আমার স্ত্রীর মাথা ব্যাথা হয় ও মাথা ঘুরে। আমাদের চোখ জ্বালা-পোড়া করে ও মাঝে মাঝে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়। বেশ কয়েকবার রেনেটা কর্তৃপক্ষের কাছে ধরনা দিয়েছি। বিষাক্ত গ্যাস ও ধোঁয়া নিয়ন্ত্রনের ব্যবস্থা নিতে বলেছি। পরিবেশ ভয়াবহভাবে দূষণ হচ্ছে তাও বলেছি। আমার মরণাপন্ন স্ত্রীর প্রতি দয়া দেখানোর জন্য তাদের অনুরোধ করেছি। কিন্তু রেনেটা কর্তৃপক্ষ নির্বিকার। তারা মুনাফার লোভে আমাদের চারপাশের পরিবেশকে বিষিয়ে তুলছে। বায়ু দুষন রোধে কোন উদ্যোগ নেয়নি। সাধারন জনগণকে নিরব ঘাতক পরিবেশ দূষণের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হিসেবে ও আমার মরণাপন্ন স্ত্রীর প্রতি তারা এতটুকু সহানুভূতি দেখায়নি।


এ বিষয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর তাইজুল ইসলাম চৌধুরী বাপ্পি বলেন, এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। রেনেটা কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা নিব।

এ ব্যাপারে পরিবেশ অধিদপ্তরের সহ কারি পরিচালক (ঢাকা মহানগর) মোক্তাদির হাসান বলেন, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। আমরা সরজমিন পরিদর্শনে যাব। অভিযোগের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

Print Friendly, PDF & Email
Comments
Share
bangladesh ekattor

bangladesh ekattor

বাংলাদেশ একাত্তর.কম

Reply your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked*

three × 2 =