জাতীয়, রাজধানী

জয়যাত্রা আইপি টিভি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় জিডি!  

%e0%a6%9c%e0%a7%9f%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%86%e0%a6%87%e0%a6%aa%e0%a6%bf-%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%ad%e0%a6%bf-%e0%a6%9a%e0%a7%87%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%b0

বাংলাদেশ একাত্তর.কম / সাদ্দাম হোসেন মুন্না:

সংবাদ প্রকাশের জেরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ও বিভিন্ন জায়গা থেকে কল করে ‘দেখে নেওয়ার’ হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আবার কখনও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কমেন্ট ও ম্যাসেজ দিয়ে মামলা ও হামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে যেকোন সময় বড় ধরনের ক্ষতির শিকার হতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন সাপ্তাহিক তদন্ত চিত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোঃ জিয়াউর রহমান । এমন শঙ্কা থেকে ডিএমপির পল্লবী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তিনি।

শনিবার (৩১ অক্টোবর ) রাতে পল্লবী থানায় উপস্থিত হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে হুমকি ও ভয়ভীতির বিষয়টি জানিয়ে সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। পল্লবী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সজিব খান সাধারণ ডায়েরিটি তদন্ত করার দায়িত্ব পেয়েছেন। সাধারণ ডায়েরি নম্বর ৩১১৬।

হেলনা জাহাঙ্গীরের ফেসবুক ম্যাসেন্জার থেকে হুমকি!

সাধারণ ডায়েরিতে জিয়াউর রহমান জানান, অনুমোদনহীন তথাকথিত আইপি টিভি জয়যাত্রা টেলিভিশন এর চেয়ারম্যান হেলেনা জাহাঙ্গীর এর বিরুদ্ধে ধারাবাহিক ভাবে সংবাদ প্রকাশের জেরে শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাত ১.৩০ মিনিটে আমাকে ফেসবুক মেসেঞ্জারে সময় মত দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আমার সম্পাদিত সাপ্তাহিক তদন্ত চিত্র পত্রিকায় তার বিভিন্ন প্রতারণার সচিত্র সংবাদ প্রকাশ করার কারণেই দীর্ঘদিন ধরেই দেখে নেওয়ার হুমকি, ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। শুধু তিনি নন তার বিভিন্ন লোকজন দিয়ে এই হুমকি অব্যাহত রেখেছেন। বিভিন্ন নম্বর থেকে আমার নম্বরে কল দিয়ে হয়রানি সহ মিথ্যা মামলা দেওয়ার হুমকি দেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আমাকে হুমকি দেয়া হচ্ছে।

এসব বিষয়ে জানতে চেয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পারলে আমার নামে মামলা দিয়ে দেখ, এই সব জিডিতে আমার কিছু হবে না। অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করে আবারও সময় হলে দেখে নেব বলে হুমকি দেয়।

জানা গেছে, রাজধানীর মিরপুর-১১ এলাকায় ভাড়া অফিস নিয়ে সরকারী অনুমোদনবিহীন জয়যাত্রা টেলিভিশনের অফিস খুলে দেশে ও বিদেশে প্রতিনিধি, ব্যুরো অফিস দেয়ার নামে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই প্রতারণার সাথে সরাসরি যুক্ত রয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর নামের ঐ নারী।

এ্যাক্রিটিটেশন কার্ডের ফটো- ইউটিউব থেকে সংগৃহীত।

সুবিধাবাদী হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে নিরাপদ রাখতে মিডিয়ার পরিচয় দিয়ে একটি এ্যাক্রিটিটেশন কার্ড সংগ্রহ করে তা নিজের ফেসবুকে শেয়ার করলে তা সাংবাদিক নেতাদের নজরে আসেন। এনিয়ে ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচনা করেন সাংবাদিক নেতারা।

সরকারী অনুমোদন না নিয়েই জয়যাত্রা টিভি নামে একটি সংবাদ ভিত্তিক স্যাটেলাইট টিভির মালিক বলে নিজেকে প্রচারণা চালান তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি থেকে। এই আইডিতে দেশবিদেশের বিভিন্ন ব্যক্তিকে নিজের পরিচালিত টেলিভিশন জয়যাত্রা টিভির সাংবাদিক ও ব্যুরো প্রধান করে সমাজে প্রতিষ্টিত করে দেবার নাম করে তার অভিনব প্রতারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে অনুমোদনহীন এই অনলাইন আইপি টিভিতে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে সাংবাদিকতার বাইরের বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। সরকার বিরোধী, সন্ত্রাস ও দুবৃত্তদের হাতে সাংবাদিকতার আইডি কার্ড তুলে দিচ্ছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর।

গত বছর একটি অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ছাড়া বাংলাদেশের কোন এমপি, মন্ত্রী গণনার টাইম নাই বলেও ওই অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন এ নারী। তার এসব অপকর্ম আড়াল করতে দেশের একজন মন্ত্রী কে জয়যাত্রা নামের কথিত টেলিভিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেন বলে জানা গেছে। ওই মন্ত্রীকে চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দিয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

সূত্র জানায়, গাজীপুর এলাকার এক শীর্ষ চাঁদাবাজের মধ্যস্থতায় ওই মন্ত্রীকে তথাকথিত এই টেলিভিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেন। তাকে নিয়োগ দিয়েই হেলেনা জাহাঙ্গীর উগ্র ও বেপরোয়াভাবে জীবন যাপন করেছেন। বিভিন্ন সময় ফেসবুকে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দিয়ে আলোচনায় আসা এ নারী বর্তমানে কোন কিছুই তোয়াক্কা করছেন না। পান থেকে চুন খসলেই “দস্যু রানীর মত” কিছু থেকে কিছু হলেই দেখে নেওয়ার হুমকি এ নারীর এখন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। দারিদ্র্যের জীবন যাপনের সেই নারী হঠাৎ করেই আঙুল ফুলে কলাগাছের মত হয়ে অঢেল সম্পত্তির মালিক বনে গিয়েছেন। এতোটাই ডেস্পারেট হয়েছেন সাধারণ মানুষকে তিনি কোনো মুল্যয়নই করতে চাননা “টাকাই যেন তার কাছে সব। এদেশের মানুষ জানতে চায়। এতো অল্প সময়ে কোটি কোটি  টাকার আয়ের উৎস কি তার। কিভাবে একজন গার্মেন্টস শ্রমিকের স্ত্রী এতো ধনসম্পত্তির মালিক বনে গেলেন। এমপি মন্ত্রীদের সাথে ছবি তুলে সেগুলো দিয়েও চলে হেলেনা জাহাঙ্গীরের চলে আরেক বানিজ্য।

Print Friendly, PDF & Email
Comments
Share
bangladesh ekattor

bangladesh ekattor

বাংলাদেশ একাত্তর.কম

Reply your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked*

ten − 7 =