বুধবার , ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

অবশেষে পাকিস্তান থেকে প্রথম পেঁয়াজ আসলো বিমানে

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
নভেম্বর ২০, ২০১৯ ১১:০০ অপরাহ্ণ

প্রতিবেশী ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করার পর ইতিহাসের রেকর্ড ভঙ্গ করে পেঁয়াজের দাম। তীব্র গতিতে বেড়ে উঠা পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে মিশর, তুরস্ক ও চীন থেকে পেঁয়াজ নিয়ে আসার ঘোষণা দিয়েছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার এই পেঁয়াজ আসার কথা থাকলেও বুধবারও এই পেঁয়াজ আসেনি। তবে পেঁয়াজ এসেছে পাকিস্তান থেকে। বিমানে করে পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজের প্রথম চালান শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পেঁয়াজের এই চালানটি আসে।বেসরকারি সিল্ক সংস্থার পণ্য পরিবহনকারী এই বিমানটিতে ৮১ টন ৫০০ কেজি পেঁয়াজ রয়েছে। ইতিমধ্যে খালাস প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক রতন কুমার সরকার বলেন, পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজের একটি চালান এসেছে। দ্রুত খালাসের জন্য তারা যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে আকাশপথে পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য চার্জ জনস্বার্থে মওকুফ করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। জানা যায়, আকাশপথে পাকিস্তানের করাচি বিমানবন্দর থেকে পেঁয়াজের প্রথম চালান শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছে। একটি বেসরকারি সিল্ক সংস্থার পণ্য পরিবহনকারী উড়োজাহাজে এই চালান আমদানি হয়।

চালানটির আমদানিকারক ঢাকার শাদ এন্টারপ্রাইজ। এ পর্যন্ত আকাশপথে চারটি উড়োজাহাজে পেঁয়াজের চালান আনার সময়সূচি ঠিক হয়েছে। শাদ এন্টারপ্রাইজ ছাড়াও চট্টগ্রামের এস আলম গ্রুপের প্রথম চালান আসার কথা গতকাল বুধবার দিবাগত রাত একটায়। সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী বিমানে প্রথম চালানটি এসে পৌঁছাবে। আজ বৃহস্পতিবার বিসমিল্লাহ এয়ারলাইন্সের পণ্যবাহী উড়োজাহাজে দ্বিতীয় চালান আসবে। শুক্রবার তৃতীয় চালান আসবে সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী বিমানে।

আকাশপথে পেঁয়াজের চালান আনার জন্য উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্র থেকে এ পর্যন্ত ২ হাজার ৭ টনের অনুমতি নেওয়া হয়েছে। শাদ এন্টারপ্রাইজ ছাড়াও এস আলম গ্রুপ অনুমতি নিয়েছে ১ হাজার ৯২৫ টনের।

সর্বশেষ - অন্যান্য