মঙ্গলবার , ১৩ এপ্রিল ২০২১ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

কন্ঠ শিল্পী মমতাজের ডিগ্রি “ভুয়া”

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
এপ্রিল ১৩, ২০২১ ১০:২৬ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ একাত্তর.কম অনলাইন ডেক্স:

বাংলাদেশের সংগীত জগতের “ফোক সম্রাজ্ঞী” খ্যাত কণ্ঠ শিল্পী মমতাজ। ভারতের তামিলনাড়ুর গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটি থেকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রির সার্টিফিকেট গত শনিবার (১০ এপ্রিল) তার হাতে তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. পি. ম্যানুয়েল।

কন্ঠ শিল্পী মমতাজের ডিগ্রি গ্রহণের খবরটি প্রকাশ্যে এলে আলোচনা সমালোচনা শুরু হয় তাকে নিয়ে। ভারতের যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি পেয়েছেন কন্ঠ শিল্পী মমতাজ সেটি বৈধ নয় বলে নানা প্রথা প্রচলিত হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে ডিগ্রি বিক্রির অভিযোগও আসে সামনে।”
বিষয়টি উঠে এসেছে বিডি ফ্যাক্টচেকের তথ্য অনুসন্ধানে। তারা বলছে, ভারতে গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটি নামে বৈধ কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নেই এটা সম্পুর্ন অবৈধ একটি প্রতিষ্ঠান। তবে এই নামে একটি ওয়েবসাইট আছে, যারা টাকার বিনিময়ে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি দিয়ে থাকে, যা ভারতের “দ্য” ইউনিভার্সিটি গ্র্যান্টস কমিশন” (ইউজিসি) অ্যাক্ট ১৯৫৬ অনুযায়ী অবৈধ।

এছাও ভারতে মোট ৯৭৯টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে কেন্দ্র পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয় ৫৪টি” ভারতের বিভিন্ন রাজ্য পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে ৪২৫টি, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় ৪২৫টি এবং ইউজিসি অ্যাক্ট-১৯৫৬-এর তিন সেকশন অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গণ্য করা হয় আরও ১২৫টি প্রতিষ্ঠানকে।” এর মধ্যে গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটির কোনো নাম ঠিকানা নেই।

সম্প্রতি বিডি ফ্যাক্টচেকের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে বিভিন্ন তথ্য। যার মধ্যে গোলমেলে ডোমেইন নাম, ভুল ঠিকানা, কোনো “আন্ডারগ্র্যাজুয়েট-গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি না থাকা এবং মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে পিএইচডি দেওয়ার বিষয়টিও প্রকাশ্যে বেরিয়ে আসছে।

অনুসন্ধানে গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটির নামে একটি ওয়েবসাইট (ghpuedu.org) পাওয়া গেছে।” সাধারণত বিশ্বের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটের ডোমেইন ডটএডু (.edu) দিয়ে শেষ হলেও এর নামের শেষে রয়েছে ডটওআরজি (.org), যা কেবল বিভিন্ন সংস্থার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।”

অন্যদিকে” বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইট ঘেঁটে কেনো স্থায়ী ক্যাম্পাসের ঠিকানা এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে তাদের কিছু আঞ্চলিক কেন্দ্রের ঠিকানা দেওয়া আছে। এই ঠিকানাগুলো গুগল ম্যাপে সার্চ করে এই সম্পর্কিত কোনো কিছুর তথ্য পাওয়া যায়নি।”

 

 

 

সর্বশেষ - অন্যান্য

আপনার জন্য নির্বাচিত