সারাদেশ

তাহিরপুর যেন সৌন্দর্যের মিলনমেলা

%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%a8-%e0%a6%b8%e0%a7%8c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%b0

আজিজুল ইসলাম: সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা ও তাহিরপুর উপজেলার, সৌন্দর্যে মুখরিত পর্যটকরা। যেমন সেখানে রয়েছে,
পাহাড়, লেক, নদী, হাওর পরিবেষ্টিত প্রাকৃতিক সাজে সজ্জিত এক নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সুনামগঞ্জের তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভরপুরে। প্রকৃতি যেন নিজ হাতেই সাজিয়েছে প্রকৃতির রাজপুত্রকে। যেমন তার রূপ, তেমন সৌন্দর্য এই দূর্গম জনপদের সবকটি পর্যটন স্পট। তাই তাহিরপুরের নজর কাড়া প্রাকৃতিক সৌন্দর্য পর্যটকদের যেমন হাতছানি দিয়ে ডাকে, তেমনি ভ্রমণপিয়াসু লোকদের এক নতুন ঠিকানা নয়নাভিরাম সৌন্দর্যের তাহিরপুর। বছরে কয়েক লক্ষাধিক দেশি-বিদেশি পর্যটক ও ভ্রমণপিপাসুদের আগমন ঘটে বৈচিত্রময় এ জনপদে। এক কথায় পর্যটকদের ভ্রমণকে আনন্দদায়ক ও সার্থক করে তুলতে পারে এই তাহিরপুর।

 

৯০ দশকের শুরুতে হাতেগোনা কিছু ভ্রমণপিয়াসু মানুষের পদচারণা পড়ে তাহিরপুরের নৈসর্গিক দৃশ্যপটে।

পরবর্তীতে ২০০০ সালের শুরু থেকে অনাকাঙ্খিতভাবে বেড়ে যায় দর্শনার্থীদের পদচারণা। আর বর্তমানে ভ্রমণ মানেই তাহিরপুর। একটু সময় পেলেই প্রকৃতিপ্রেমীরা ছুটে আসে এই রূপের লীলাভূমিতে। কতটা সুন্দর প্রকৃতির রূপ-বৈচিত্রের তাহিরপুর। তা ঘুরে না দেখলে বোঝা যাবেনা। গ্রাম বাংলার হাওর আর তার জলরাশি যেন প্রকৃতিকে সাজিয়ে তুলেছে অপার মহিমায়। আপনারা অনেকেই বিশাল টাঙ্গুয়ার হাওরের নাম শুনেছেন। যেখানে আনাগোনা করে কখনো মেঘ কখনো জমাট-আবার কখনো হালকা বাতাসে দলছুট হয়ে পাগলা ঘোড়ার মত উত্তরে দাঁড়ানো আকাশছোঁয়া বিশাল মেঘালয় পাহাড়ে গিয়ে আঁছড়ে পড়ে।

প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য হাওরের নীচে জলজ উদ্ভিদ দেখতে পর্যটকরা আপন মনে ছুটে চলেছেন নীলাভ টাঙ্গুয়ায়। এই ভরা বর্ষায় হাওরের সাদা-নীল পানিতে অর্ধডোবা হিজল-করছ গাছের পরশে পর্যটকরা নৌকায় ঘুরছেন বৃক্ষলতার সাথে মিতালী করতে করতে। নীলরঙে রূপায়িত নীলাদ্রি শহীদ সিরাজ লেকের রূপের শেষ নেই। লেকটি মাত্র কয়েক বছরে ফেসবুকের কল্যানে খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, প্রতিদিন প্রকৃতিপ্রেমীদের ভীড়ে মুখরিত হয় মেঘালয় পাহাড়ঘেরা টেকেরঘাটের এ লেকটি। নিজ চোঁখে নাম দেখলে বিশ্বাস করা যাবেনা প্রকৃতির এ মায়াবী রূপ। নান্দনিক সৌন্দর্যেঘেরা সবুজময় বারেক টিলা সংলগ্ন রূপের যাদুকাটা যেন দর্শনার্থীদের এক রূপকথার গল্প। এখানে প্রতিদিন নৌ-বিহারে আসেন পর্যটকরা। সেখান থেকে মেঘালয়ের দৃষ্টিনন্দন সারিসারি খাসিয়া পাহাড়ে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে দর্শনার্থীরা। নদীর তীরেই বিশাল শিমুল বাগান। এ যেন কল্পনার রঙে সাজানো এক শিমুলের প্রান্তর।

বসন্তে রক্তিম শিমুলের আভায় সৌখিন হৃদয়ের ঘুম ভাঙায়, আর বর্তমানে সবুজের সমাহার। উপজাতী পল্লীঘেঁষা মেঘালয় পাহাড় থেকে প্রবাহিত সীমান্তের লালঘাট ঝর্ণা, লাকমাছড়া ঝর্ণা প্রকৃতিপ্রেমীদের আরেক ঠিকানা। এছাড়াও প্রাচীন লাউড় রাজ্যের স্মৃতিবিজড়িত গ্রাম লাউড়েরগড়, লাউড় রাজ্যের রাজধানী নবগ্রাম ও লাউড় রাজ্যের সর্বশেষ রাজা বিজয় সিংহের হাওলি রাজবাড়িসহ সবকটি পর্যটন স্পটে পর্যটক ও ভ্রমণপিয়াসুদের ভীড় লেগেই থাকে। শুল্ক স্টেশন চারাগাঁও, বড়ছড়া, বাগলীতেও দর্শনার্থীদের ভীড় লক্ষ্য করা যায়। দূর্গম অঞ্চলে একসাথে এতগুলো স্পট দূর্গম যাত্রা ভুলিয়ে দেয়।

Print Friendly, PDF & Email
Comments
Share
bangladesh ekattor

bangladesh ekattor

বাংলাদেশ একাত্তর.কম

Reply your comment

Your email address will not be published. Required fields are marked*

eight + nine =