শনিবার , ১৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

রূপনগর থানা কৃষকলীগের বর্ধিত সভায়, আলহাজ্ব মাকসুদুল ইসলাম ।

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
অক্টোবর ১৩, ২০১৮ ৩:৫৯ পূর্বাহ্ণ

কৃষকলীগের বর্ধিত সভায় স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত পুরো রূপনগর। “কৃষক বাঁচলে বাঁচবে দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” বলে থেমে যায় বক্তারা, উৎসুক জনতা যাপড় দিয়ে বলে “জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু” 

কৃষকলীগের বর্ধিত সভা দেখে মনে হলো এযেন কৃষকলীগের এক বিশাল মিলন মেলা।

খবর সংগ্রহে শেখ রাজুঃ

আজ ১২/১০/২০১৮ইং শুক্রবার বিকাল ৫ ঘটিকার সময় ,রাজধানীর রূপনগর আবাসিক ৩৯ নং রোডের শেষ মাথায় রুপনগর থানা কৃষকলীগ অফিসের সামনে বিশাল এক বর্ধিত সভা অনুষ্টান অনুষ্টিত হয়। উক্ত কৃষকলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আলহাজ্ব মাকসুদুল ইসলাম ( সভাপতি কৃষকলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর। উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন হাজী হারুন অর রশিদ ( সভাপতি কৃষকলীগ রূপনগর থানা) ঢাকা মহানগর উত্তর। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (মধু) (সহ-সভাপতি রূপনগর থানা) ঢাকা মহানগর উত্তর।

বক্তব্যে প্রধান অতিথি বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে ঢাকা-১৬ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী আমি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন তাহলে আমি নৌকার মনোনয়ন নিয়ে ঢাকা-১৬ আসনে নির্বাচন করবো , আর যদি প্রধানমন্ত্রী আমাকে মনোনয়ন না দেন তাহলে নৌকার পক্ষে যাকেই মনোনয়ন দেন তার পক্ষেই কাজ করবো। তিনি আরও বলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে সয়ং সম্পুর্ণ বিশ্বের প্রথম না হই  দ্বিতৃয় স্থানে নাম থাকবে বাংলাদেশের। আমাদের দেশে এখন সব কিছু আছে তার একমাত্র অবদান বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা বলেই সব সম্ভব। প্রধান অতিথি দলের উদ্দেশ্যে বলেন, বিগত দিন থেকে আজ পযর্ন্ত আমরা কি পাইছি বা পাই নাই সেদিক চিন্তা না করে কি ভাবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ’কে ক্ষমতায় জনগনের ভোটের মাধ্যমে  আনা যায় সেদিক সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

বক্তব্যে হাজি হারুন বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় না থাকলে এদেশে এত অল্প দিনে এত উন্নয়নশীল হতে পারতো না। তিনি আরও বলেন, ঢাকা-১৬ আসনে নৌকার প্রতিক নিয়ে আলহাজ্ব মাকসুদুল ইসলাম ভাইকে এই ঢাকা- ১৬ আসনের এমপি হিসেবে দেখতে চাই ও তিনি এমপি হলে এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী, দখলবাজ, চাদাবাজ, সন্ত্রাস থাকবেনা এলাকায় সবাই শান্তীতে বসবাস করতে পারবে।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনাকারি মধু বলেন, মনে বড় জ্বলা, বিএনপির আমলে আমরা ঘরে ঘুমাতে পারিনি,মামলা হামলা দিয়ে আমাদের দৌড়ানোর উপর রাখতো, কিন্তু আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এখন কৈ আমরা তো কোন বিএনপির লোকদের মারধর করিনা মিথ্যে মামলা  ও হামলা করিনা। তিনি আরও বলেন, এখন বহু সুবিধা ও হাইব্রিড নেতা কর্মীরা দলে ঢুকে আমাদের পেটে লাথি মারতে আসছে, যারা আগে জামাত বিএনপি করতো,  বিএনপি’র আমলে আমাদের কে ঘরে শান্তিতে থাকতে দেয়নি তারা এখন সুবিধা নিতে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনে  ঢুকছে। মধু আরও বলেন, আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করে এই সুবিধা বাদীদের দল থেকে তাড়াতে হবে, না হলে দলের ভিতর এরাই ঘুন ধরাবে।

এ সময় দলের আরও নেতা কর্মীরা একে একে বক্তব্য দেন। উক্ত কৃষকলীগের এই বর্ধিত সভা যেন জনসভায় রূপান্তর হয়েছে। সরজমিনে দেখা যায় যে, শত শত কৃষকলীগের নেতা কর্মীরা দলে দলে উক্ত অনুষ্ঠানে যোগ দেন ও নৌকার সমর্থনকারিরা। সকল প্রকার পেশাজীবি মানুষও উক্ত এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠানে তাদের প্রিয় মুখ ঢাকা-১৬ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী জনাব আলহাজ্ব মাদকসুদুল ইসলামকে এক নজর দেখার অপেক্ষায় অপেক্ষিত এলাকার জনগন ছিলো অধির আগ্রহে। কিন্ত এই নিউজ সংগ্রহের সময় দুই/তিন জন দালাল এসে সাংবাদিকদের কাজে বাধা প্রদান করে, যাহাতে কৃষকলীগের এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠানটি যাতে প্রচার না হয়। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উক্ত অনুষ্ঠানটি সমাপ্ত করা হয়।

সর্বশেষ - অন্যান্য