রবিবার , ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

ফরিদপুরের সদরপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরীর ধর্ষণ চেষ্টার মিলেনি বিচার;

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮ ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

নাজমুল নিরব খান,ফরিদপুর থেকেঃ
ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা আকোটেরচর ইউনিয়নের খোরশেদ হাজীর ডাঙ্গী গ্রামে প্রতিবন্ধী কিশোরী ধষর্ণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়ার পরেও ঘটনা ধামাচাপা দিয়েছেন কথিত স্থানীয় গ্রাম্য নেতাবৃন্দ ।
জানাযায়, গত মঙ্গলবার সন্ধা ৬ টায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে তার বসতভিটের নিকটে ঝোপঝাড়ে পাশে একা পেয়ে প্রতিবেশী শেখ তোতার ছেলে শেখ শুকুর (৫৫) ধর্ষণের জন্য জোর চেষ্টা চালায় । এ সময় জোরাজুরীর শব্দ পেয়ে ঘটনাটি এলাকাবাসীর নজরে পড়লে লোকজনের ধাঁওয়ার মুখে পরে  শুকুর পালিয়ে যায় । ঘটনার পর ওই গ্রামের মাতুব্বর আবুল কালাম মেম্বার (৫৫), কালা খান (৫০) ও স্বপন খলিফা (৪৫) বিষয়টি স্থানীয়ভাবে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
এ ব্যপারে সদরপুর থানায় কিশোরীর মা-বাবা অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ কোনো অভিযোগ নেয়নি বলে জানায় অভিবাবক। বৃহস্পতিবার মাতুব্বর আবুল কালাম মেম্বার এ প্রতিবেদককে জানায়, “ ঘটনার রাতেই আমরা গ্রাম্য বৈঠকে বসে কিশোরীর দিন মজুর পিতার হাতে পায়ে ধরিয়ে আপোষ মিমাংষা করে দিয়েছি, এখন সে আবার মামলা করতে চায় কোন সাহসে ”।
এদিকে ঘটনার    প্রত্যক্ষদর্শী পান্নু মৃধা (৪৮) জানায়, “ ঘটনার সময় আমি ফসলী মাঠ থেকে গো-খাদ্য কলাইয়ের বোঝা নিয়ে বাড়ী ফিরছিলাম। একটি ছোট্ট মেয়ের উপর নির্যাতন দেখে দৈৗড়ে এসে শুকুরকে ধাওয়া করি ,তারপর আসেপাশের লোকজন বেড়িয়ে আসে এবং শুকুর মাঠের মধ্যে দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়”।
এদিকে  বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গেলে প্রতিবন্ধী কিশোরীর  পিতা রফিক মৃধা ও মাতা সাজেদা বেগম  বলেন ,আমরা গরীব মানুষ দিনমজুর করি,আমাদের বোবা মেয়ের সাথে অন্যায় হয়ছে।আমরা কোনদিন থানায় যায়নি,কিভাবে কি করতে হয় কিছুই জানিনা।ঘটনা ঘটার পওে গন্যমান্যদেও বলছি এবং থানায় গেছি কিন্তু কোন যায়গায় কোন সমাধাণ পায়নি।আমাদের টাকা নেই আর গরিব মানুষ বলে আমরা কি কোন বিচার পাব না।   কিশোরীর পিতামাতা বলেন, “ আমরা গরিব মানুষ ক্ষেত খামাওে কাজ করি,ছেলে মেয়েদেও রেখে বাড়ির বাইওে যাই-এখন কেউ যদি আমার বাড়ি খালি দেখে আমার ছেলে মেয়েদের ক্ষতি করে তাহলে আমরা কি কোন বিচার পাব না।আমরা আমাদের মেয়ের সাথে যেটা হয়ছে তার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।যাতে এলাকার আর কেউ এরকম না করার সুযোগ পায়।
এদিকে অভিযুক্ত শেখ শুকুরের বাড়িতে গেলে তাকে বাড়িতে পাওয়া যায় নি।তবে তার পক্ষের লোক স্বপন জানান ”এ ব্যাপারেতো আমরা মিমাংশা করে দিয়েছি।কি মিমাংশা করেছেন জানতে চায়লে তিনি আমাদের সুষ্ঠ কোন বক্তব্য দিতে পরেনি।
আবার অভিযোগ কারীর কাছে জানতে চায়লে তারা বলেন ”আমরা কোন সমাধান পায়নি,শুনেছি সরকার বর্তমানে সঠিক বিচার কওে দেখি আমরা কি বিচার পাই”\

সর্বশেষ - সর্বশেষ সংবাদ

আপনার জন্য নির্বাচিত