বুধবার , ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

পোস্টারে ঢেকে গেছে মিরপুর

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৮ ১:৪৭ পূর্বাহ্ণ

আফজাল হোসেন বাংলাদেশ একাত্তর : আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে মিরপুরের অলিগলিসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রধান সড়ক বিভিন্ন দলের প্রার্থীদের পোস্টার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ির দেয়াল, গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মোড়, যানবাহন, বাজার, খালি জায়গা এমনকি রশিতে করে প্রার্থীদের ছবি সংবলিত পোস্টার বিভিন্ন জায়গায় ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।রাস্তার পাশে খুঁটিতে কিংবা মূল সড়কের পশে ফেস্টুন লাগিয়ে ভোটারদের মনোযোগ আকর্ষণ করেছেন কেউ কেউ। অনেক প্রার্থী মূল সড়কে নিজেদের ছবি সংবলিত তোরণও বানিয়েছেন।

বৃহত্তর মিরপুরে ঢাকা-১৪, ১৫ ও ১৬ সংসদীয় আসন পড়েছে। প্রতিটি আসনে জাতীয় পার্টি ও আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী রয়েছেন। প্রচার-প্রচারণায় তাই জানান দিচ্ছেন তারা। এ আসনে বিএনপির কয়েকজন হেভিওয়েট প্রার্থী থাকলেও তাদের কোনো প্রচার-প্রচারণা নেই। এমনকি অনেকেই তাদের নামও জানে না।

সরেজমিন মিরপুর-১, ২, ৬, ৭, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৪ ঘুরে দেখা গেছে, ঢাকা-১৬ আসনে আওয়ামী লীগের এখলাস উদ্দিন মোল্লাহ, এসএম মান্নান কচি, আমির হোসেন মোল্লাহ ও সংসদ সদস্য ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহর পোস্টার-ফেস্টুন টাঙিয়ে ভোট প্রার্থনা করা হচ্ছে।তাদের ছবি সংবলিত পোস্টার ফেস্টুন মহল্লার অলিগলিসহ গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় শোভা পাচ্ছে।

প্রার্থীদের কেউ কেউ নিজ দলের পক্ষে ভোট চাইছেন। আবার দলের নেতাকর্মীরা নিজেদের ছবি সংবলিত পোস্টার-ফেস্টুনে প্রার্থীর পক্ষে মনোনয়ন চাইছেন। সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে মিরপুর-১০, ১১ ও ১২ নম্বর, সিরামিক রোড ও কালশীতে কয়েকটি তোরণ নির্মান করেছেন ঢাকা-১৬ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী এখলাস উদ্দিন মোল্লাহ ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এসএম মান্নান কচি।

প্রার্থীরা ভোট চাওয়ার পাশাপাশি দলীয় প্রার্থী হিসেবে সমর্থন চাইছেন। এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী এখলাস উদ্দিন মোল্লাহ। তিনি বলেন, আমি মিরপুরের মোল্লাহ পরিবারের সন্তান। রাজনীতির মধ্যেই আমার বেড়ে ওঠা এলাকাবাসীর সুখ-দুঃখে সব সময়ই পাশে ছিলাম। জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সব সময় দলের জন্য ও এলাকাবাসীর জন্য কাজ করেছি। বর্তমান সরকারকে যেভাবেই হোক ক্ষমতায় আনতে হবে। সেজন্য প্রয়োজন যোগ্য প্রার্থী। এলাকাবাসী চাইছে আমি নির্বাচন করি। তাই দলের পক্ষ হয়ে নির্বাচন করব। আশা করি, দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।

ঢাকা-১৬ আসনে বিএনপির কয়েকজন হেভিওয়েট প্রার্থী থাকলেও তাদের প্রচার-প্রচারণা নেই। এ আসনে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি আমানত হোসেন আমানত প্রচার-প্রচারণা শুরু করছেন।

ঢাকা-১৫ সংসদীয় আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনুল হোসেন নিখিল, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফুল, সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদার ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সামসুল হকের পোস্টার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। ১০ নম্বর গোলচত্বর, কাজীপাড়া শেওড়াপাড়া, কাফরুলসহ বিভিন্ন জায়গা প্রার্থীদের পোস্টার-ফেস্টুন রয়েছে। অনেকেই নিয়মিত গণসংযোগ কিংবা উঠোন বৈঠক করছেন। আবার একেকদিন একেক মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করছেন। সেই সঙ্গে নিজেদের জন্য দোয়াও চাইছেন। এ আসনেও বিএনপি সমর্থিত অনেক প্রার্থী থাকলেও প্রচার-প্রচারণা নেই। আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু বলেন, এক সময় ছাত্রলীগ করতাম। মহানগরের দায়িত্বে ছিলাম। সুখে-দুঃখে এলাকাবাসীর পাশে সব সময় ছিলাম। ছাত্রলীগ করা অবস্থায় দলের দুঃসময়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি। নেত্রী যখন যেখানে দায়িত্ব দিয়েছেন তা সঠিকভাবে পালন করেছি। নেত্রীর কথাই শেষ কথা। দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষে কাজ করব।

ঢাকা-১৪ সংসদীয় আসনে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য সাবিনা আক্তার তুহিন ও বর্তমান সংসদ সদস্য আসলামুল হক আসলাম নিজ দলের পক্ষে মনোনয়ন চাইছেন। গাবতলী, দারুসসালাম রোড, শাহআলী, রাইনখোলা ও রূপনগর আবাসিক এলাকার বিভিন্ন সড়কে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের পোস্টার-ফেস্টুন শোভা পাচ্ছে। জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাকুর রহমান মোস্তাকের কিছু পোস্টার গাবতলী এলাকায় চোখে পড়লেও এ আসনে বিএনপির কোনো প্রার্থীর পোস্টার চোখে পড়েনি।

সর্বশেষ - অন্যান্য

আপনার জন্য নির্বাচিত