বৃহস্পতিবার , ৩০ জুলাই ২০২০ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

কামাল আহমেদ মজুমদার স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে অবৈধ গরু-ছাগলের হাট

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
জুলাই ৩০, ২০২০ ৪:৫১ অপরাহ্ণ

কামাল আহমেদ মজুমদার স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে অবৈধ গরু-ছাগলের হাট।

বাংলাদেশ একাত্তর. কম নিজেস্ব প্রতিবেদকঃ

ছবি-বাংলাদেশ একাত্তর

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন মিরপুর রুপনগর আবাসিক এলাকায় কামাল আহমেদ মজুমদার স্কুল এন্ড কলেজের মাঠে ও গেটের সামনে অনুমোদন ছাড়া গরু ছাগলের হাট বসিয়েছে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এবং উক্ত কমিটির দুই সদস্য। তারা উক্ত অবৈধ হাট থেকে দৈনিক ৫ হাজার টাকা করে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠে।

একাধিক সুত্রে জানাযায়, উক্ত কমিটির সদস্য মিজানুর সাজু ও কবির হোসেন তাদের বাচ্চারা এই স্কুলের শিক্ষার্থী না হলেও তারাই ম্যানেজিং কমিটির সদস্য।

এমনও শোনা যায়, ম্যানেজিং কমিটির ওই দুই সদস্য স্কুলের বিভিন্ন জিনিসপত্র রাতের আধারে বিক্রি করছে। প্রধান শিক্ষক মাজহারুল ইসলাম ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হারুন অর রশীদের আশীর্বাদক্রমে এই অপকর্ম করে যাচ্ছে। যা দেখেও তারা না দেখার ভান করে আছে। আরও অভিযোগ উঠে, করোনা পরিস্থিতিতে স্কুলের কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও তাদের পার্সোনাল কাজ-কর্ম চলছে স্কুলের ভিতর যা ইচ্ছা তাই করছে, স্কুলকে নানা অপকর্মে তারা ব্যবহার ও করছে।

কামাল আহমেদ মজুমদার স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ঢাকা ১৫ আসনের সাংসদ ও বর্তমান সরকারের শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার।

স্কুল মাঠে ও বাইরে গেটের কাছে গরু ছাগলের হাট
মানতে নারাজ অভিভাব ও স্থানীয়রা তাই তাদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

স্কুলের মাঠে গরু ছাগলের হাট খানাখন্দ ও ময়লা আবর্জনা।

এলাকাবাসীর কানাঘুষায় বিষয়টি জানতে পেরে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নির্দেশক্রমে গরু-ছাগলের পাল গুলোকে স্কুল গেটের সামনে রেখে বিক্রি করা হয়। কিন্তু রাত হলেই আবার আনা হয় স্কুল মাঠে এমন কান্ডে অনেকেই ক্ষিপ্ত।

স্থানীয় ও অভিভাবদের দাবী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রাখতে, স্কুলের পূর্বের সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। গরু-ছাগলের হাট বাসনোর কারনে বাইরে ও মাঠের যে ক্ষয়ক্ষতি ও পরিবেশ দুষিত হয়েছে সেগুলোকে নিষ্কৃত করতে হবে এবং বিদ্যালয়ের মাঠ ও গেটের সামনে গরু-ছাগলের হাট না বসানোর জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

এ বিষয়ে জানতে সভাপতি হারুন অর রশীদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান সাজুর কাছে জানতে চাইলে বলেন, হাট বসানো সম্মন্ধে আমি এসব কিছুই জানিনা, কারা বসিয়েছে তাও আমি জানিনা।

স্কুলের পুরনো জিনিস পত্র বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, এগুলো সব সরকারি মাল যেভাবে থাকার কথা সেভাবেই আছে, আমি কিছুই বিক্রি করিনি।

পর্ব-১

সর্বশেষ - অন্যান্য