শুক্রবার , ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আওয়ামীলীগ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. ধর্ম
  9. বি এন পি
  10. বিনোদন
  11. বিশেষ সংবাদ
  12. রাজধানী
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. শিল্প ও সাহিত্য

কলাপাড়া লালুয়া ইউনিয়নে  মাদক ব্যাবসার  কারনে হুমকির মুখে যুবসমাজ- প্রশাসনের শুদৃষ্টি জরুরী।

প্রতিবেদক
bangladesh ekattor
ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯ ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

কলাপাড়ায় লালুয়া ইউনিয়নে  মাদক ব্যাবসার  কারনে হুমকির মুখে যুবসমাজ- প্রশাসনের শুদৃষ্টি জরুরী

মোঃ পারভেজ- কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালী কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নে এখন ও অবাধে চলছে ইয়াবা সেবন ও বিক্রি।ধরা ছোয়ার বাহিরে রয়ে গেছে রাঘব বোয়ালেরা।ইউনিয়নের বানাতি বাজার, উওর লালুয়া লঞ্চ ঘাট বাজার, ছোনখোলা গ্রাম, এবং ছোনখোলা নতুন বাজার মাঝের হাওলা গ্রাম, গুলবুনিয়া গ্রাম,চলছে জমজমাট মাদক ব্যবসা ও সেবন। সহ বেশ কিছু যায়গায় কিছু প্রভাবশালী লোক অনেকদিন যাবৎ এ মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

সন্ধা হলেই বানাতি বাজার, ছোনখোলা নতুন বাজার। লঞ্চ ঘাট বাজারের কোন দোকান ঘরে বসে অথবা ছোনখোলা নদীর কুলে গড়ে উঠেছে অনেক ঘর।সে ঘরে থাকেনা কোন মানুষ জন। সে ঘরে রাখা হয় ইয়াবা এবং সেবন করে সেখানে বসে তারা। লঞ্চ ঘাট বাজারের নদীর পাড়ে বসে সেবন করে এবং শের-ই বাংলা নৌঘাঁটিতে আনুমানিক তিন থেকে চার হাজার শ্রমিক কাজ করে তাদের মাঝে বিক্রি করা হয়।

ইয়াবা, মদ,ও গাঁজা আর এইসব আসার মাধ্যম হলো পাশবর্তী বালিয়াতলি ইউনিয়ন, কলাপাড়া উপজেলা, কুয়াকাটা, থেকে স্থানীয় কিছু মটর চালকদের দ্বারা, অথবা টাকার বিনিময়ে কিছু লোক  নিয়া আসে তাদের আড্ডাস্থানে। এভাবে হাতের নাগালে মাদক পাওয়ায় এলাকার যুব সমাজ ও স্কুল- কলেজ-গামী ছাত্ররা মাদকে আসক্ত হয় বলে জানা যায়।এলাকার সচেতন ব্যক্তিরা জানান, আমরা মাদক সেবিদের বাধা দিলে আমাদেরকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, এলাকার বেশিরভাগ মটর চালকরা টাকার বিনিময়ে মাদক এনে মাদকসেবীদের কাছে পৌছে দেয়।মাদক ব্যবসার কারনে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়ে,মাদকের সহজলভ্যতার কারনে এলাকার যুবসমাজের ভিতরে ইয়াবা সেবীর পরিমান বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এ ব্যপারে স্থানীয় প্রশাসনের কঠিন পদক্ষেপ আশা করে স্থানিয় এলাকাবাসী। তরুন প্রজন্ম ও যুব সমাজকে মাদকের মরন ফাঁদ থেকে রক্ষা করতে এসব মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করা জরুরী বলে মনে করেন এলাকাবাসী।

সর্বশেষ - অন্যান্য

আপনার জন্য নির্বাচিত